মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

শাখার নামঃরাজস্ব , এলএ
নাগরিক সেবা

ক্রঃ নং

সেবার নাম

সেবা প্রদানের পদ্ধতি

সেবা প্রদানের সময়সীমা

নিদিষ্ট সেবা প্রদানে ব্যর্থ হলে প্রতিকারের বিধান।

০১।

ভূমি অধিগ্রহণ সংক্রান্ত কার্যক্রম

প্রত্যাশী সংস্থার নিকট হতে এল এ ম্যানুয়েল এর বিধানমতে সংশ্লিষ্ট সকল কাগজাদি সঠিক ভাবে প্রাপ্ত হলে প্রস্তাবিত ভূমি এল, এ ম্যানুয়েল এর সকল বিধান অনুসরণ পূর্বক অধিগ্রহণ করে প্রত্যাশী সংস্থার নিকট দখল হস্তান্তর করা হয়।

স্থাবর সম্পত্তি অধিগ্রহণ ও হুকুম দখল অধ্যাদেশ ১৯৮২ (অধ্যাদেশ নং ২, ১৯৮২) এবং স্থাবর সম্পত্তি অধিগ্রহণ ম্যানুয়েল ১৯৯৭ এর নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে

প্রস্তাবে কোন ভূল ত্রুটি থাকলে তা সংশোধনের জন্য প্রত্যাশী সংস্থার সহিত যোগাযোগ ক্রমে পূর্নাঙ্গ ও সঠিক প্রস্তাব প্রাপ্তি সাপেক্ষে অধিগ্রহণ কার্যক্রম সম্পন্ন করা হয়।

০২

অধিগ্রহণে সংশ্লিষ্ট ভূমির মূল্য নির্ধারণ

প্রত্যাশী সংস্থার নিকট থেকে প্রস্তাব পাওয়ার পর প্রস্তাবিত ভূমির মূল্য সংশ্লিষ্ট উপজেলা সাব-রেজিষ্ট্রার হতে সংগ্রহ পূর্বক নির্ধারন করা হয়।

অধিগ্রহণ সংক্রান্ত সভায় তা উপস্থাপনের পর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

০৩

ক্ষতিপূরণ পরিশোধ

আবেদনকারী যথানিয়মে মালিকানা সংক্রান্ত সকল কাগজাদিসহ আবেদন করার পর তার আবেদন সঠিক পাওয়া গেলে নির্ধারিত ক্ষতিপুরনের টাকা পরিশোধ করা হয়।

কোন আপত্তি পাওয়া গেলে কিংবা স্বত্বের বিষয়ে কোন জটিলতার উদ্ভব হলে তা আইনানুগভাবে নিস্পত্তি হওয়ার পর ক্ষতিপূরনের টাকা পরিশোধ করা হয়।

০৪।

ভূমি অধিগ্রহণ কার্যক্রমে অভিযোগ/ আপত্তি নিস্পত্তি করণ

ভূমি মালিকানা সংক্রান্ত কোন অভিযোগ থাকলে তা শুনানীর মাধ্যমে নিস্পত্তি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

চুড়ান্ত নিস্পত্তির পর।

আপত্তি পাওয়া গেলে কিংবা স্বত্বের বিষয়ে কোন জটিলতার উদ্ভব হলে তা আইনানুগভাবে নিস্পত্তি করা হয়।

অধিগ্রহণকৃত ভূমির ক্ষতিপুরণের টাকা পাওয়ার জন্য আবেদনের সাথে যে সকল কাগজাদি/ তথ্যাদি দাখিল করতে হবেঃ

এতদ্বারা নরসিংদী জেলার আওতাভূক্ত অধিগ্রহণকৃত ভূমির মালিক/ স্বার্থ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিগণকে জানানো যাচ্ছে যে, ক্ষতিপুরনের টাকা ভূমি অধিগ্রহণ দখল শাখা হতে উত্তোলনের পূর্বে স্বত্ব প্রমানের লক্ষ্যে আবেদনের সাথে নিম্নবর্ণিত কাগজাদি/ তথ্যাদি জমা দিতে হবে।

১. এস, এ খতিযানের সহি মোহর যুক্ত অবিকল নকল।

২. নামজারী খতিয়ান (মূলকপি)

৩. তসদিককৃত খতিয়ানের/চলমান জরীপের মাঠ পর্চার কপি (মূল কপি)

৪. হাল সন পর্যন্ত ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধের দাখিলা (মূল কপি)।

৫. বায়া দলিলসহ মূল দলিল/সার্টিফাইড কপি।

৬. মৃত ব্যক্তির ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান/ পৌর মেয়র কর্তৃক ওয়ারিশ সার্টিফিকেট (মূল কপি)

৭. সংশ্লিষ্ট স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান/ পৌর মেয়র কর্তৃক জাতীয়তা সার্টিফিকেট

৮. সংশ্লিষ্ট স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান/ পৌর মেয়র কর্তৃক ক্ষমতা দাতা ও গ্রহীতাগনের প্রত্যেকের ০১(এক) কপি করে সদ্য তোলা পাসপোর্ট সাইজের সত্যায়িত ফটো।

৯. ১৫০/- টাকার নন জুডিশিয়াল ষ্ট্যাম্পের মধ্যে চেয়ারম্যান/ ওয়ার্ড কমিশনার এর সন্মূখে শরীকদের ব্যক্তিগত উপস্থিতিতে শরীকগণ কর্তক প্রতি পৃষ্ঠায় স্বাক্ষর। উল্লেখ্য যে, একক মালিক এর জন্য ক্ষমতাপত্র লাগবে না।

১০. ক্ষমতা দাতা ও গ্রহীতাগণকে আমি ব্যক্তিগতভাবে চিনি ও আমার সন্মূখে স্বাক্ষর করিয়াছে মর্মে স্থানীয় চেয়ারম্যান/ মেয়র ক্ষমতাপত্রের প্রতি পৃষ্ঠায় নামের সীলসহ প্রত্যায়ন প্রদান করিবেন।

১১. ক্ষতিপুরনের এল,এ চেক গ্রহণের সময় সনাক্তকরণের জন্য নামের সীলসহ মেয়র/ চেয়ারম্যান/ কাউন্সিলর/ গনমান্য ব্যক্তি সংগে আনতে হবে।

১২. জমির মালিক প্রবাসী হইলে ক্ষমতা গ্রহীতার বরাবরে সংশ্লিষ্ট দূতাবাসের মাধ্যমে আমমোক্তার নামা দাখিল করতে হবে এবং উক্ত আমমোক্তার নামাটি পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের মাধ্যমে সরকারি ভাবে অত্র অফিসে প্রাপ্ত দিতে হবে।

১৩. চেক গ্রহণের পূর্বে ১৫০/- টাকার নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে অঙ্গীকারনামা দিতে হবে।

১৪. পারিবারিক সম্পত্তি আপোষ বন্টণনামার ক্ষেত্রে রেজিষ্টার্ড আপোষ বন্টণনাম। আবেদনের সাথে অত্র কার্যলয়ে সংরক্ষণের জন্য উপরে বর্ণিত কাগজপত্রাদি এর মূল কপির সাথে ফটোকপি দাখিল করতে হবে।


শাখার নামঃরাজস্ব , রেভিনিউ মুন্সীখানা (আরএম)
নাগরিক সেবা

ক্রঃ নং

সেবার নাম

সেবা প্রদানের পদ্ধতি

সেবা প্রদানের সময়সীমা

নিদিষ্ট সেবা প্রদানে ব্যর্থ হলে প্রতিকারের বিধান।

০১

সরকার পক্ষে দেওয়ানী মামলা রুজু ও পরিচালনা সংক্রান্ত বিষয়াদি।

সরকারী জমাজমি সংক্রান্তে সরকরকে বিবাদী করে/ সরকার বাদী হয়ে দেওয়ানী আদালতে দায়েরকৃত মোকদ্দমায় সরকার পক্ষে বিজ্ঞ জিপির মাধ্যমে প্রতিদ্বন্দ্বিতা পূর্বক সরকারী স্বার্থ তথা জনস্বার্থ সংরক্ষণ করা হয়।

বিজ্ঞ দেওয়ানী আদালতের কার্যপ্রণালী/ বিধিবিধান মোতাবেক

যথাসাধ্য চেষ্টার পরও যদি কোন মোকদ্দমায় সরকরের বিপক্ষে রায় হয় তাহলে আপীল/ রিভিশনের ব্যবস্থা করা হয়।

০২

দেওয়ানী মামলার এস,এফ তৈরী ও প্রেরণ বিষয়।

দেওয়ানী আদালত হতে সমন ও আর্জি প্রাপ্তির পর এসএফ (ঘটনা বিবরণী) চেয়ে সংশ্লিষ্ট সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবর পত্র প্রেরণ করা হয়। এস এফ প্রাপ্তির পর বিজ্ঞ সরকারী কৌশলীর নিকট প্রেরণ করা হয়।

যত দ্রুত সম্ভব।

বিজ্ঞ আদালতে সময়ের আবেদন করতে হয়।

০৩

দেওয়ানী আপীল দায়ের বিষয়

কোন দেওয়ানী মোকদ্দমায় সরকরের বিপক্ষে রায় হলে সাথে সাথে রায় ডিক্রির জাবেদা নকল উত্তোলনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। নকল পাওয়া মাত্র বিজ্ঞ জিপির মাধ্যমে আপীল করা হয়।

মূল মোকদ্দমায় রায় ডিকিত্ম তারিখ হতে ৩০ দিনের মধ্যে। তবে জাবেদা নকল প্রাপ্তি সাপেক্ষ্যে।

তামাদি মওকুফের আবেদন করতে হয়।

০৪

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসকা (রাঃ) এর নিকট দয়েরকৃত আপীল মামলার নিস্পত্তি

মিস আপীল মামলা রুজুর পর পক্ষগণকে নোটিশ প্রদান পূর্বক উপযুক্ত শুনানী গ্রহনান্তে পক্ষগণ কর্তৃক দাখিলকৃত লিখিত জবাব/ কাগজপত্র দৃষ্টে বিধিবিধান মোতাবেক আদেশ প্রদান করা হয়।

বিজ্ঞ আদালত কর্তৃক সন্তুষ্টি সাপেক্ষ্যে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব।

পরাজিত পক্ষ প্রয়োজন মনে করলে অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (রাঃ) বরাবর আপীল করতে পারেন।

০৫

জিপি/এজিপি নিয়োগ পদ্ধতি ও ভাতা প্রদান বিষয়।

বিজ্ঞ জিপি/ এজিপি গনের নিয়োগ আইনবিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের সলিসিটর উইং হতে প্রদান করা হয়। পিপি/এজিপি গনের ভাতা আর, এম শাখা হতে বিধি মোতাবেক প্রদান করা হয়।

বিজ্ঞ জিপি/ এজিপিগনের আবেদন প্রাপ্তি সাপেক্ষে গ্রহনযোগ্য সময়ের মধ্যে

আবেদন বিধি মোতাবেক পাওয়া গেলে ভাতা প্রদানে ব্যর্থতার অবকাশ নেই।

০৬

অবমূল্যায়িত দলিলের মামলা নিস্পত্তি কার্যক্রম

সাব-রেজিষ্ট্রার অফিস হতে পত্র পাওয়ার পর কেস নথি সৃজন পূর্বক দলিল গ্রহীতা বরাবর নোটিশ প্রদান করা হয়। উপযুক্ত শুনানী প্রদান করা হয়। উপযুক্ত শুনানী অন্তে কাগজ-পত্র দৃষ্টে আদেশ প্রদান কর হয়। দলিল গ্রহীতা ঘাটতি রাজস্ব জমা প্রদন করলে মামলা নিস্পত্তি হয়। ঘাটতি রাজস্ব প্রদান না করলে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যে জেনারেল সার্টিফিকেট মামলা রুজুর ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

আদালতের সন্তুষ্টি সাপেক্ষ্যে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব।

জেনারেল সার্টিফিকেট কেসের মাধ্যমে টাকা আদায় করা হয়ে থাকে।

০৭

বিনিময় সম্পত্তি সংশ্লিষ্ট মামলার কার্যক্রম।

বর্তমানে সরকার কর্তৃক বিনিময় মামলার কার্যক্রম স্থগিত রয়েছে।

 

 

০৮

স্ট্যাম্প ভেন্ডার লাইসেন্স প্রদান, নবায়ন ও বাতিলকরণ

ক) আনুসাঙ্গিক কাগজপত্রাদী সহ জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন করতে হয়। আবেদন প্রাপ্তির পর পুলিশ সুপার, কুমিল্লা, সংশ্লিষ্ট সহকারী কমিশনার ভূমি, সংশ্লিষ্ট সাব-রেজিষ্টার এর নিকট হইতে যাচাই প্রতিবেদন প্রাপ্তির পর ষ্ট্যাম্প ভেন্ডার লাইসেন্স প্রদান করা হয়।

 

খ) প্রতি বৎসর ৩১শে জুন এর মধ্যে নির্ধারিত খাতে সরকারী লাইসেন্স ফি জমা দিয়ে মূল লাইসেন্স সহ ১০/- টাকার কোর্টফি সম্বলিত ষ্ট্যাম্প ভেন্ডার লাইসেন্স নবায়নের আবেদন (পরবর্তী বৎসরের জন্য) ভেন্ডরগণকে সহকারী কমিশনার (আ.এম) নরসিংদী বরাবরে দাখিল করতে হয়।

গ) লাইসেন্স নবায়নের দরখাস্ত প্রাপ্তির পর তা যাচাই বাছাইক্রমে সঠিক পাওয়া গেলে পরবর্তী বৎসরের জন্য লাইসেন্স নবায়ন করা হয়।

ঘ) ষ্ট্যাম্প এ্যাক্ট-এর ১৮৯৯ বিধি মোতাবেক তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

কাগজপত্র সঠিকতা যাচাইয়ের জন্য যুক্তি সংগত সময়।

 

 

 

৭(সাত) দিনের মধ্যে লাইসেন্স নবায়ন করে ভেন্ডারগণকে সহকারী কমিশনার (আর.এম) প্রদান করেন।

 

 

 

 

 

 

যদি কোন কারনে কোন ভেন্ডার নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে লাইসেন্স নবায়নের দরখাস্ত সহকারী কমিশনার (আর.এম) নরসিংদী বরাবরে দাখিল করতে ব্যর্থ হন তহলে, তাকে যুক্তিসংগত কারণ ব্যাখ্যা করে জেলা প্রশাসক, কুমিল্লা মহোদয় বরাবরে ৫/- টাকার কোর্টফি সহযোগে আবেদন করতে হবে।

যদি জেলা প্রশাসক মহোদয় তার দরখাস্ত অনুমোদনকারীর লাইসেন্স সহকারী কমিশনার (আর.এম) কুমিল্লা নবায়ন করতে পারেন।

০৯

অবিবাহিত সনদ প্রদান

আনুষঙ্গিক কাগজপত্রসহ জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন করতে হয়। আবেদন প্রাপ্তির পর যাচাইয়ের জন্য পুলিশ সুপার, জেলা বিশেষ শাখা বরাবর প্রেরণ করা হয়। প্রতিবেদন প্রাপ্তির পর সনদ প্রদান করা হয়।

কাগজপত্র সঠিকতা যাচাইয়ের জন্য যুক্তি সংগত সময়।

 

১০

আমমোক্তার নামা রি-স্টাম্পিং

আমমোক্তার নামা সম্পাদনের ৯০ কর্ম দিবসের মধ্যে জেলা প্রশাসক বরাবর রি-স্টাম্পিং এর আবেদন করতে হয়। আবেদন করতে প্রাপ্তির পর যাচাইয়ের জন্য সচিব পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয় এবং সহকারী কমিশনার ভূমি বরাবর প্রেরণ করা হয়। প্রতিবেদন প্রাপ্তির পর ২৫০/- টাকা মূল্যমানের বিশেষ আঠালো স্ট্যাম্প দ্বারা রি-স্টাম্পিং করা হয়।

কাগজপত্র সঠিকতা যাচাইয়ের জন্য যুক্তি সংগত সময়।

 


শাখার নামঃরাজস্ব , এসএ
নাগরিক সেবা

 

দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তার পদবীঃ রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর

ক্রঃ নং

সেবার নাম

সেবা প্রদানের পদ্ধতি

সেবা প্রদানের সময়সীমা

নির্দিষ্ট সেবা প্রদানে ব্যর্থ হলে প্রতিকারের বিধান

০১।

কৃষি খাস জমি বন্দোবস্ত প্রদান অনুমোদন

কৃষি খাস জমি ব্যবস্থাপনা ও বন্দোবস্ত নীতিমালা, ১৯৯৭ মোতাবেক উপজেলা কমিটি কর্তৃক নির্বাচিত ভূমিহীনদের অনুকূলে বন্দোবস্ত নথি সৃজনক্রমে এ অফিসে প্রেরণ করা হয়। প্রাপ্ত নথি/নথিসমূহ পরবর্তী মাসিক কৃষি খাস জমি ব্যবস্থাপনা ও বন্দোবস্ত কমিটির সভায় উপস্থাপিত হয়। সৃজিত নথিতে কোন ত্রুটি না থাকলে জেলা কৃষি খাস জমি ব্যবস্থাপনা ও বন্দোবস্ত কমিটির সভায় অনুমোদিত হয়।

জেলা কৃষি খাস জমি ব্যবস্থাপনা ও বন্দোবস্ত কমিটির সভায় অনুমোদনের পর পরবর্তী ০৭ কার্য দিবসের মধ্যে সংশ্লিষ্ট উপজেলায় পরবর্তী কার্যক্রমের জন্য নথি।

উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে

অবহিত করা।

০২।

অকৃষি খাস জমি বন্দোবস্ত প্রসত্মাব অনুমোদন

অকৃষি খাস জমি ব্যবস্থাপনা ও বন্দোবস্ত নীতিমালা, ১৯৯৫ মোতাবেক অকৃষি খাস জমি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান/ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান / সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে মন্ত্রণালয়ের চূড়ান্ত অনুমোদনক্রমে বন্দোবস্ত প্রদানের বিধান রাখা হয়েছে। ঐ সকল বন্দোবস্ত নথি উপজেলা নির্বাহী অফিসার হতে পাওয়ার পর নীতিমালা মোতাবেক অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাঃ) যুক্তিসংগত সময়ে সরেজমিনে পরিদর্শন করেন। বন্দোবস্ত প্রদানে সরকারের কোন স্বার্থের হানি না হলে নথি চূড়ান্ত অনুমোদনের নিমিত্ত ভূমি মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করা হয়।

নীতিমালায় এ সংক্রান্ত কোন সময় নির্ধারণ করা হয়নি। কোন ত্রুটি কিংবা কারো কোন আপত্তি না থাকলে দ্রুততার সাথে ভূমি মন্ত্রণালয়ে নথি প্রেরণ করা হয়। ভূমি মন্ত্রণালয় কর্তৃক অনুমোদিত হলে অত্রাফিসে কেস নথি গৃহীত হবার পরবর্তী ০৭ (সাত) কার্য দিবসের মধ্যে প্রয়োজনীয় কার্যক্রমের জন্য নথি সংশ্লিষ্ট উপজেলা ভূমি অফিসে প্রেরণ করা হয়।

উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে

অবহিত করা।

০৩।

বাজার ভিটি একসান লীজ

বাজার ভিটি একসনা লীজ নথি সংশ্লিষ্ট উপজেলা ভূমি অফিসে সৃজিত হয়। প্রকৃত ব্যবসায়ীর অনুকূলে ০.০০৫০ (আধা শতক) একর ভূমি একসনা ভিত্তিতে লীজ প্রদানের বিধান রয়েছে। সহকারী কমিশনার (ভূমি) / উপজেলা নির্বাহী অফিসার নিশ্চিত হয়ে অনুমোদিত পেরিফেরি ভূক্ত বাজার ভিটি লীজের প্রস্তাব এ অফিসে প্রেরণ করেন।

এ বিষয়ে সরকারি কোন সময় নির্ধারণ করা নেই। কোন অভিযোগ কিংবা নথিতে কোন ত্রুটি না থাকলে ০৭ (সাত) দিনের মধ্যে নথি অনুমোদনক্রমে সংশ্লিষ্ট উপজেলা ভূমি অফিসে ফেরত দেওয়া হয়।

উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে

অবহিত করা।

০৪।

সায়রাত মহাল জলমহাল বালুমহাল ইজারা

২০ একরের উর্দ্ধের জলমহাল, ট্রানজিটমহাল ও যে কোন আকারের বালুমহাল এ কার্যালয় হতে ইজারা প্রদান করা হয়। দরপত্র প্রাপ্তির পর বালুমহাল সংক্রান্ত জেলা আমত্মঃ সংস্থা কমিটিতে পেশ করা হয়। এ কমিটি কর্তৃক অনুমোদিত হলে ভূমি মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করা হয়। জলমহাল ইজারা সংক্রান্ত বিষয়ে বিগত ৩ বৎসরের ইজারা মূল্যের গড় হতে ৫% অধিক হারে বিবেচ্য বৎসরের ইজারামূল্য নির্ধারণ করা হয়ে থাকে।

যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমোদনের পর নথিপত্র ফেরত পাবার পরবর্তী ০৭ (সাত) কার্য দিবসের মধ্যে ইজারামূল্য পরিশোধ সাপেক্ষে চুক্তিপত্র সম্পাদন করে ইজারাদারকে দখল বুঝিয়ে দেয়া হয়।

উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে

অবহিত করা।

০৫।

উচ্ছেদ মামলাঃ (সরকারি ভূমি উদ্ধার)

সরকারি ভূমির অবৈধ দখল উচ্ছেদের লক্ষ্যে সহকারী কমিশনার (ভূমি) হতে প্রস্তাব/নথি পাওয়া গেলে ৩ (তিন) কার্য দিবসের মধ্যে নথি পেশ করা হয়। সরকারি প্রচলিত নিয়মানুযায়ী ৭ দিনের সময় দিয়ে অবৈধ দখলকারকে নোটিশ প্রদান করা হয়। অতঃপর অবৈধ দখলকার/ স্থাপনা উচ্ছেদ/ অপসারণের নিমিত্ত আইনানুযায়ী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দেয়া হয়।

পুলিশ ফোর্স প্রাপ্যতা ও সুবিধাজনক সময়ে।

উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে

অবহিত করা।

০৬।

বিভিন্ন প্রকার আপিল / আপত্তি

সহকারী কমিশনার (ভূমি) কর্তৃক গৃহীত কার্যক্রমের বিরুদ্ধে কোন আপিল/আপত্তি আবেদন পাওয়া গেলে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাঃ) এর আদালতে পক্ষদ্বয়ের শুনানীনান্তে এবং তাদের দাবির অনুকূলে প্রয়োজনীয় কাগজ-পত্রাদি পর্যললোচনা করে রায় প্রদান করা হয়।

পক্ষদ্বয়ের উপস্থিতি এবং দাবির অনুকূলে প্রয়োজনীয় দাখিলকৃত দলিল দসত্মাবেজ পর্যালোচনায় ও শুনানীনান্তে ৭ কার্য দিবসের মধ্যে সিদ্ধান্ত প্রদান করা হয়।

উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে

অবহিত করা।

০৭।

এস.এ শাখার

অধীনে কর্মরত কর্মকর্তা/ কর্মচারীদের বিভিন্ন রকম সরকারি প্রাপ্য সুবিধাদি

এস.এ শাখার অধীনে কর্মরত কানুনগো, ইউনিয়ন ভূমি সহকারী/ উপসহকারী কর্মকর্তা, সার্ভেয়ার, জারীকারক ও এম.এল.এস.এস গণের টাইমস্কেল, দক্ষতাসীমা, পেনশন সহ সকল প্রশাসনিক কার্যাদি সরকারি নিয়ম নীতি অনুসরণে এ শাখা হতে সম্পাদিত হয়। উপজেলা ভূমি অফিস হতে এ সংক্রান্ত পত্র পাবার পর ৩ কার্যদিবসের মধ্যে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট পেশ করা হয়।

এ সংক্রান্ত কোন নির্ধারিত সময় নেই। তবে সরকারি বিধিবিধান অনুসরণে তা করা হচ্ছে জেলা প্রশাসক মহোদয়ের অনুমোদনের পর পরবর্তী ৩ কার্য দিবসের মধ্যে আদেশ/মঞ্জুরীপত্র জারী করা হয়।

উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে

অবহিত করা।

০৮।

নথি/রেকর্ড

সংরক্ষণ

সরকারি খাস ভূমি স্থায়ী/অস্থায়ী বন্দোবস্ত সংক্রান্ত সকল প্রকার নথি এবং নামজারি জমাখারিজ সংক্রান্ত নথি উপজেলা ভূমি অফিসে সংরক্ষণ করা হয়।

এ সংক্রান্ত সকল তথ্য সংশ্লিষ্ট উপজেলা ভূমি অফিসে যোগাযোগ করে জেনে নেয়া যাবে।

উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে

অবহিত করা।

০৯।

তথ্য, পরামর্শ ও অভিযোগ।

রাজস্ব বিষয়ক অথবা ভূমি সংক্রান্ত যে কোন ধরণের তথ্য, পরামর্শ, অভিযোগ, সমস্যা সরাসরি আরডিসি কিংবা শাখার প্রধান সহকারীর সাথে আলোচনা করে জেনে নেয়া যাবে।

তাৎক্ষণিক।

উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে

অবহিত করা।


শাখার নামঃসার্বিক , সংস্থাপন
নাগরিক সেবা

দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তার পদবীঃ প্রশাসনিক কর্মকর্তা

ক্রঃ নং

সেবার নাম

সেবা প্রদানের পদ্ধতি

সেবা প্রদানের সময়সীমা

নির্দিষ্ট সেবা প্রদানে ব্যর্থ হলে প্রতিকারের বিধান।

০১।

কর্মকর্তা/কর্মচারীদের সংস্থাপন

কর্মকর্তা/কর্মচারীদের নিয়োগ প্রাপ্তির পর কালেক্টরেটে যোগদান করলে কর্মকর্তা/ কর্মচারীদের যাবতীয় ডাটাবেজ সংরক্ষণ ও সকল প্রকার কার্যাদি পরিচালনা করা হয়।

নির্দিষ্ট সময়সীমা নেই

-------------------

০২।

কর্মকর্তা/কর্মচারীদের মাসিক বেতন বিল, টিএ বিল প্রস্ত্ততকরণঃ

যথাসময়ে প্রাপ্যতা অনুসারে বিল প্রস্ত্ততপূর্বক যাচাই-বাছাইক্রমে উপস্থাপন করা হয়।

বেতন বিল বিবেচ্য মসের ২০-২৪ তারিখের মধ্যে এবং টি,এ বিল প্রাপ্তির ৭ দিনের মধ্যে

সমস্যা থাকলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা/কর্মচারীর সাথে এবং প্রয়োজনে জেলা হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তার কার্যালয়ে আলাপ করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

০৩।

কর্মকর্তা/কর্মচারীদের ছুটি সংক্রান্ত বিষয়ঃ

ছুটি ভোগের প্রয়োজনীয়তা ও প্রাপ্যতা সাপেক্ষে কাজ সম্পাদনের বিকল্প ব্যবস্থা গ্রহণ পূর্বক মঞ্জুরীর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়।

নৈমত্তিক ছুটি ১ বা ২ দিনের মধ্যে অর্জিত ও মাতৃত্বজনিত ছুটি আবেদনের ৭ দিনের মধ্যে

সমস্যা দেখা দিলে আবেদনকারী অথবা প্রয়োজনে জেলা হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তার কার্যালয়ে যোগাযোগ করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

০৪।

১। কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণঃ

উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট হতে প্রশিক্ষণ বিষয়ে কোন তথ্য চাহিত হলে নির্ধারিত রেজিষ্টার পর্যবেক্ষণ করে চাহিদা মোতবেক তথ্য বিবরণী তৈরী করে প্রেরণ করা হয়।

নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কিংবা ৩ দিনের মধ্যে বিবরণী তৈরী করে প্রেরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

কোন কর্মকর্তার বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ/ প্রদান কাজে কোন সমস্যা দেখা দিলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা সাথে ব্যক্তিগত যোগাগের মাধ্যমে সঠিক তথ্য সংগ্রহপূর্বক প্রেরণ করা হয়।

 

০২। কর্মকর্তাদের বদলী সংক্রান্ত বিষয়ঃ

কর্মকর্তাদের বদলী সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন সাধারণ/তাৎক্ষণিক অবমুক্তির ও নির্দেশনার গুরুত্ব অনুসারে অবমুক্তির ও তদস্থলে বিকল্প কর্মকর্তা নিয়োগের পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়।

সাধারণ ক্ষেত্রে ৭ দিনের মধ্যে এবং তাৎক্ষণিক ক্ষেত্রে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে।

অনিবার্য কারণে বদলীকৃত কর্মকর্তাকে অবমুক্তির ব্যবস্বথা গ্রহণ করা সম্ভব না হলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে জরুরী ভিত্তিতে টেলিফোনিক যোগযোগসহ পত্রালাপ করা হয়।

 

০৩। কর্মকর্তাদের মধ্যে কর্মবন্টণঃ

প্রতিটি শাখার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নিয়োগ এবং তাঁর অনুপস্থিতিতে প্রতিকল্প কর্মকর্তা নিয়োগের ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়।

কোন শাখার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার পদ শুন্য হলে ঐ দিন কিংবা পরবর্তী কর্মদিবসে নতুন কর্মকর্তা নিয়োগের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

কর্মকর্তা স্বল্পতার সমস্যার সৃষ্টি হলে একজন কর্মকর্তাকে একাধিক দায়িত্ব প্রদানের মাধ্যমে সমস্যার সমাধান করা হয়।

 

০৪। কর্মকর্তা/ কর্মচারীদের পেনশন/ পারিবারিক পেনশন/ যৌথবীমা ও কল্যাণ তহবিল সংক্রান্ত বিষয়ঃ

আবেদন ফরম সংগ্রহ ও পূরনের সহায়তাসহ জিজ্ঞাসা মাত্র যাবতীয় নিয়মাবলী অবহিত করা হয়। প্রাপ্ত আবেদন করা হয়। প্রাপ্ত আবেদন পরীক্ষা নিরীক্ষা করে প্রয়োজনে প্রশাসনিক অনুমোদনসহ যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট প্রেরণ করা হয়।

আবেদন প্রাপ্তির ৫-৭ দিনের মধ্যে

অসম্পূর্ন বা ত্রুটিপূর্ন আবেদন সংশোধনের সুযোগ ও পরামর্শ প্রদান করা হয়।

 

০৫। কর্মকর্তা/ কর্মচারীদের বার্ষিক গোপনীয় অনুবেদন

কর্মকর্তা কর্তৃক ফরম পূরণ পূর্বক দাখিল করলে তা অনুস্বাক্ষর/ প্রতিস্বাক্ষর করে মন্ত্রণালয় প্রেরণ করা হয় এবং কর্মচারীদের ফরম পূরণ পূর্ব দাখিল করলে তা অনুস্বাক্ষর করে শাখায় সংরক্ষণ করা হয়।

বার্ষিক গোপনীয় অনুবেদন প্রপ্তির ৭ দিনের মধ্যে

অসম্পূর্ণ বা ত্রুটিপূর্ণ ফরম সংশোধনের সুযোগ ও পরামর্শ প্রদান করা হয়।

 

০৬। কর্মকর্তা কর্মচারীদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় কার্যক্রম সংক্রান্ত।

কোন কর্মকর্তা/কর্মচারীর বিরুদ্ধে অভিযোগ আনয়ন করলে অভিযুক্ত কর্মকর্তা/ কর্মচারীর বিরুদ্ধে তাৎক্ষনিকভাবে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

অভিযোগ প্রাপ্তির ০১(এক) সপ্তাহের মধ্যে তদন্তকারী কর্মকর্তা নিয়োগক্রমে ১৫দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন সংগ্রহ করত: আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়া না গেলে পরবর্তী ০১(এক) সপ্তাহের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন নিশ্চিত করা হয়। অন্যাথায় পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণার্থে জেলা প্রশাসক মহোদয়কে অবহিত করা হয়।

 

০৭। বাজেট প্রস্ত্তত করণঃ

মন্ত্রনালয় হতে চাহিত ছক মোতাবেক কর্মকর্তা/ কর্মচারীদের বেতন ভাতাদির বাজেট প্রস্ত্ততপূর্বক যথাসময়ে প্রেরণ করা হয়।

৩০শে জুন এর মধ্যে উদ্ধৃত সমুদয় টাকা সমর্পণ করা হয়। এছাড়াও মন্ত্রনালয় হতে চাহিত তথ্য যথাসময়ে প্রেরণ করা হয়।

বাজেটে গরমিল দেখা দিলে মন্ত্রনালয়ে সংশ্লিষ্ট জেলা হিসাবরক্ষণ অফিসের সাথে যোগাযোগ করে সঠিক তথ্য সংগ্রহের ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়।

 

০৮। মাসিক স্টাফ মিটিং সংক্রান্ত।

কর্মকর্তা/কর্মচারীদের সমন্বয়ে প্রতি মাসে স্টাফ মিটিং এর ব্যবস্থা করা হয়। উক্ত মিটিং-এ শাখার কার্যক্রমের অগ্রগতি/ সমস্যাবলী নিয়ে আলোচনা করা হয়।

কোন শাখায় কার্যাদি পরিচালনায় সমস্যা দেখা দিলে স্টাফ মিটিং-এ তা সমাধানের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

-----------------------

 

০৯। কর্মচারীদের সাধারণ ভবিষ্যৎ তহবিল হতে অগ্রিম, গৃহ নির্মাণ, মোটর সাইকেল ঋণ গ্রহণ সংক্রান্তঃ

নির্ধারিত ফরমে আবেদন গ্রহণ করা হয় এবং প্রাপ্যতা সাপেক্ষে অনুমোদনের জন্য জেলা প্রশাসকের নিকট প্রেরণ করা হয়।

আবেদন প্রাপ্তির ৭ দিনের মধ্যে

অসম্পূর্ন বা ত্রুটিপূর্ন আবেদন সংশোধনের সুযোগ ও পরামর্শ প্রদান করা হয়।

 

১০। কর্মচারীদের টাইমস্কেল/ দক্ষতাসীমা সিলেকশন গ্রেড, বিশেষ ইনক্রিমেন্ট প্রদান সংক্রান্তঃ

নির্ধারিত কমিটির সভা আহবান করে কমিটির মাধ্যমে যাচাই-বাছাইপূর্ব সুনির্দিষ্ট প্রস্তাবের ভিত্তিতে জেলা প্রশাসক মহোদয় কর্তৃক সিদ্ধান্ত প্রদান করা হয়।

আবেদন প্রাপ্তির ১৫-২০ দিনের মধ্যে

কোন আবেদনকরীর চাকুরী বহি না পাওয়া গেলে বা অন্য কোন ত্রুটি থাকলে সভা অনুষ্ঠানের পূর্বে সংশোধনের সুযোগ প্রদান করা হয়।


শাখার নামঃসার্বিক , ট্রেজারী
নাগরিক সেবা

ক্রঃ নং

সেবার নাম

সেবা প্রদানের পদ্ধতি

সেবা প্রদানের সময়সীমা

নিদিষ্ট সেবা প্রদানে ব্যর্থ হলে প্রতিকারের বিধান।

০১।

জুডিশিয়াল, নন-জুডিশিয়াল পোস্টাল কার্টিজ পেপার ও অন্যান্য স্ট্যাম্প:

ট্রেজারীচালানের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট সরকারী খাতে জমাকৃত টাকার বিপরীতে জুডিশিয়াল ও নন- জুডিশিয়াল স্ট্যাম্প সমূহ জেলা ট্রেজারী হতে জনসাধারণ/ ভোক্তার/প্রতিষ্ঠানের নিকট সরবরাহ করা হয়।

চালার গ্রহণ ও পাশ অফিস চলাকালীন প্রতিদিন ১০.০০ হতে ১.০০টা পর্যন্ত

বিতরণ/সরবরাহঃ

প্রতি কার্য দিবসে অফিস চলাকালীন সময়ে।

সময়সীমা ৪ ঘন্টা

সবকারী ছুটি বা অন্য কোন কারণে যদি অফিস বন্ধ থাকে তা পরবতী কার্য দিবসে সম্পাদন করা হয়।

০২।

বাংলাদেশ ডাক বিভাগ কর্তক স্মারক ডাক টিকিট প্রাপ্তি স্বীকার সংক্রান্ত

ডাক বিভাগ, ঢাকা হতে স্ট্যাম্প সরবরাহের পর প্রাপ্তি স্বীকারের জন্য চালান প্রেরণ করা হলে যথা সময়ে প্রাপ্তি স্বীকার করা হয়।

সময়সীমা ১ (এক) মাস

 

০৩।

রেভিনিউস্ট্যাম্প

স্থানীয় ডাকঘরের চাহিদা মোতাবেক রেভিনিউ স্ট্যাম্প সরবরাহ করা হয়।

সময়সীমা ১ (এক) মাস

 

০৪।

পোস্টেজ স্ট্যাম্প

স্থানীয় পোস্ট অফিসের চাহিদা মোতাবেক সংশিষ্ট খাতে টেজারী চালানোর বিপরীতে পোস্টেজ স্ট্যাম্প সরবরাহ করা হয়।

সময়সীমা ১ (এক) সপ্তাহ

 

০৫।

সকল ধরনের স্ট্যাম্পের রক্ষণাবেক্ষণ

গণপুর্ত বিভাগের নিদেশনা মোতাবেক ডবল লকের আলমারী/তাকের উপর সকল ধরনের স্ট্যাম্প যথাযথভাবে রক্ষণাবেক্ষণ করা হয়।

সার্বক্ষণিক

 

০৬।

ট্রেজারী থেকে স্ট্যাম্প সরবরাহ

জমাকৃত চালানের বিপরীতে ডাক বিভাগ, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, জন সাধারণ ও ভেন্ডারদের ইডেন্ট মোতাবেক স্ট্যাম্পসরবরাহ ও প্রদান করা হয়।

প্রত্যেক কার্য দিবসে

 

০৭।

অন্যান্য বিভাগ কতৃক টেজারীতে মূল্যবান সামগ্রী সংরক্ষণ

অন্যান্য বিভাগের প্রয়োজনে নগদ অর্থ অথবা সীল করা ব্যাগ ইত্যাদি ট্রেজারী রুলস এর এসআর ৫০ বিধি মোতাবেক সংরক্ষণ করা হয়।

০১ মাস বা তদুর্ধ্ব

 

০৮।

স্ট্রং রুমের নিরাপত্তা বিধান

পি আর বি ২য় খন্ডের ৬৯৫ বিধি এবং ট্রেজারী রুলস ৫২ বিধি মোতাবেক ট্রেজারী নিরাপত্তা বিধান নিশ্চিত করা হয়।

প্রত্যহ

 

০৯।

জাল স্ট্যাম্প প্রচলন রোধ

জাল স্ট্যাম্প পাওয়া সাপেক্ষে তদন্ত করে উহার সত্যতা যাচাইয়ে জন্য ট্রেজারী অফিসের স্ট্যাম্প বিক্রয় সংশিষ্ট রেজিষ্টারের সাথে বিক্রি স্ট্যাম্পের ক্রমিক নম্বর রেজিষ্টারের নাম ইত্যাদি পরীক্ষা করতে হয় এবং জাল নিশ্চিত হওয়ার জন্য ডাক বিভাগে প্রেরণ করা হয়।

ডাক বিভাগ হতে প্রতিবেদন প্রাপ্তির সাপেক্ষে

 

১০।

বিভিন্ন পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ও মূল্যবান মামলার আলামত সংরক্ষণ।

ক) পরীক্ষা শুরু হওয়ার পূর্ব মূহুত পর্যন্ত বিভিন্ন পরীক্ষার প্রশ্নপত্র সমূহ গালাসীল যুক্ত ট্যাংক ট্রজারীতে সংরক্ষণ করা হয়

 

 

 

 

ক) জেলা প্রশাসক নরসিংদী এর পূর্ব সম্মতি সাপেক্ষে মামলার জব্দকৃত ও মূল্যবান দ্রবাদি গালাসীলযুক্ত অবস্থায় ট্রেজারী অফিসার, কুমিল্লা এর তত্বাবধানে সম্পদ সংরক্ষণ করা হয়ে থাকে।

ক) মালামাল নিয়ে আসার ১ ঘন্টার মধ্যে ট্রেজারী অফিসার ডবল লকে সংরক্ষণ করেন।

খ)মালামাল সরবরাহের ক্ষেত্রে অন্তত ১ দিনে পূর্বে অবহিত করার পরবর্তী কার্য দিবসে ট্রেজারী অফিসার মালামাল সরবরাহ করেন।

যদি কোন কারণে সংশিষ্ট অফিস তাদের রক্ষিত মালামাল সমূহ নিতে ব্যর্থ হল তাহলে সংশিষ্ট অফিসের পুনরায় চাহিদা পত্র মোতাবেক পুনঃ নিধারিত তারিখে অনুসারে মালামাল সরবরাহ করা হয়।


শাখার নামঃশিক্ষা ও উন্নয়ন , শিক্ষা ও কল্যাণ
নাগরিক সেবা

ক্রঃ নং

সেবার নাম

সেবা প্রদানের পদ্ধতি

সেবা প্রদানের সময়সীমা

নিদিষ্ট সেবা প্রদানে ব্যর্থ হলে প্রতিকারের বিধান।

০১

০১। পাবলিক পরীক্ষা ব্যবস্থাপনা বিষয়ক

০২। প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পরীক্ষা

ক) সব ধরনের পাবলিক পরীক্ষা শুরুর পূর্বে সংশ্লিষ্টদের নিয়ে প্রস্ত্ততিমূলক সভা পূর্বক নকলমুক্ত পরিবেশে পরীক্ষা অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়। এছাড়া সুষ্ঠু পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলা হয়।

খ) বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার গভণিংবডি গঠনে নির্বাচন পরিচালনার জন্য প্রিজাইডিং অফিসার নিয়োগ করা হয়।

যত দ্রুত সম্ভব

 

০২

ক্রীড়া, সাংস্কৃতিক ও শিল্পকলা একাডেমী বিষয়ক কার্যক্রম

মন্ত্রনালয় হতে চাহিত ক্রীড়া বিষয়ক বিভিন্ন কার্যক্রম সম্পর্কিত তথ্য জেলা ক্রীড়া অফিস, কুমিল্লা হতে সংগ্রহ পূর্বক প্রেরণ এবং শিল্পকলা একাডেমী সুষ্ঠু ব্যবহারে তদারকি ও নির্দেশনা প্রদানসহ নির্ধারিত ফির মাধ্যমে শিল্পকলা একাডেমীতে অনুষ্ঠান পরিচালনার অনুমতি প্রদান

যত দ্রুত সম্ভব

 


শাখার নামঃসার্বিক , নেজারত
নাগরিক সেবা

ক্রঃ নং

সেবার নাম

সেবা প্রদানের পদ্ধতি

সেবা প্রদানের সময়সীমা

নিদিষ্ট সেবা প্রদানে ব্যর্থ হলে প্রতিকারের বিধান

০১।

প্রটোকল সংক্রান্ত সকল কাজ

ভি ভি আই পি, ভিআইপি ও উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণের সফরসূচি পাওয়ার সাথে সাথে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিবর্গের নিকট প্রেরণ করা হয়।

সফরসূচি পাওয়র সাথে সাথে / তাৎক্ষণিক

কোন প্রকার সমস্যা হলে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ কর্তৃক পয়োজনে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সাথে আলাপ আলোচনা করে তাৎক্ষণিক সমাধান করার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

০২।

সার্কিট হাউস ব্যবস্থাপনা

ভি ভি আই পি, ভিআইপি ও উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণের সার্কিট হাউসের উপস্থিতির সাথে সাথে প্রাপ্যতা অনুযায়ী সার্কি হাউসের কক্ষ বরাদ্দ প্রদান করা হয়।

উপস্থিতির সাথে সাথে

কোন প্রকার সমস্যা হলে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলাপ আলোচনা করে সাথে সাথে সমাধান করার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

০৩।

জেল পুলের কার্যক্রম

ক) গাড়ি মেরামত ও রক্ষনাবেক্ষনের উদ্দেশ্যে বিধি মোতাবেক মোমতের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়। অত:পর সরবরাহকারী/ মেরামতকারী প্রতিষ্ঠান কর্তৃক বিল দাখিল করা হলে তা পরিশোধের নিমিত্তে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট উপস্থাপন করা হয়।

বিল দাখিলের ১৫ দিনের মধ্যে

সমস্যা থাকলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা/ কর্মচারীর সাথে এবং প্রয়োজনে হিসাব নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়ে আলাপ আলোচনা করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

 

 

খ) জেলা পুলে কর্মরত মেকানিক গাড়ীচালক ও হেলপার কর্তৃক দাখিলকৃত বেতন বিল, অতিরিক্ত খাঁটুনী, ভ্রমনভাতা বিলসহ বিভিন্ন বিল প্রাপ্তির পর যাচাই বাছাইক্রমে বিধি মোতাবেক পরিশোধের নিমিত্ত উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট উপস্থাপন করা হয়।

বেতন বিল ২০-২৪ তারিখের মধ্যে এবং অন্যান্য বিল দাখিলের ০৭(সাত) দিনের মধ্যে

সমস্যা থাকলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা/ কর্মচারীর সাথে এবং প্রয়োজনে হিসাব নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়ে আলাপ করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

০৪। ৪র্থ শ্রেণী কর্মচারীদের প্রশাসনিক কার্যাবলীঃ

ক)

৪র্থ শ্রেণী কর্মচারীদের নিয়োগ ও বদলীসংক্রান্তঃ

জনস্বার্থে সরকারী নীতিমালার ভিত্তিতে সরকারী কর্মচারীদের সরাসরি নিয়োগ ও বদল করা হয়।

সরাসরি নিয়োগের ক্ষেত্রে ছাড়পত্র পাওয়ার ৩-৪ মাসের মধ্যে

অসম্পূর্ন বা ত্রুটিপূর্ন আবেদন সংশোধনের সুযোগ ও পরামর্শ প্রদান করা হয়।

খ)

৪র্থ শ্রেণী কর্মচারীদের ছুটিসংক্রান্ত বিষয়ঃ

ছুটি ভোগের প্রয়োজনীয়তা ও প্রাপ্যতা সাপেক্ষে কাজ সম্পদনের বিকল্প ব্যবস্থা গ্রহন পুর্বক মঞ্জুরীর পদক্ষেপ গ্রহন।

নৈমিত্তিক ছুটি ০১ বা ০২ দিনের মধ্যে, অর্জিত ও মাতৃত্বজনিত ছুটি আবেদনের ০৭ দিনের মধ্যে

সমস্যা থাকলে সশ্লিষ্ট কর্মকর্তা/ কর্মচারীর সাথে এবং প্রয়োজনে হিসাব নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়ে আলাপ করে ব্যবস্থা গ্রহণ।

গ)

৪র্থ শ্রেণী কর্মচারীদের টাইমস্কেল/দক্ষতাসীমা প্রদানসংক্রান্তঃ

নির্ধারিত কমিটির সভা আহবান করে কমিটির মাধ্যমে যাচাই-বাছাইপূর্বক সুনিদিষ্ট প্রস্তাবের ভিত্তিতে জেলা প্রশাসক মহোদয় কর্তৃক সিদ্ধান্ত প্রদান করা হয়।

আবেদন প্রাপ্তির ১৫-২০ দিনের মধ্যে

কোন আবেদনকারীর চাকুরী বহি না পাওয়া গেলে বা অন্য কোন ত্রুটি থাকলে সভা অনুষ্ঠানের পূর্বে সংশোধনের সুযোগ প্রদান করা হয়।

ঘ)

৪র্থ শ্রেণী কর্মচারীদের পদোন্নতিসংক্রান্তঃ

৪র্থ শ্রেণী কর্মচারীদের পদোন্নতিযোগ্য শূন্যপদের বিপরীতে বিধিসম্মতভাবে পদোন্নতির জন্য যোগ্য কর্মচারীদের নামের তালিকা প্রস্ত্তত করে ছক আকারে জেলা প্রশাসক মহোদয় বরাবর উপস্থাপন।

পদ শূন্য হওয়ার ২-৩ মাসের মধ্যে

কোন আবেদনকারীর চাকুরী বহি না পাওয়া গেলে বা অন্য কোন ত্রুটি থাকলে সভা অনুষ্ঠানের পূর্বে সংশোধনের সুযোগ প্রদান করা হয়।

ঙ)

৪র্থ শ্রেণী কর্মচারীদের পেনশন/পারিবারিক পেনশন/যৌথবীমা ও কল্যাণ তহবিল সংক্রান্তঃ

প্রাপ্ত আবেদন পরীক্ষা নিরীক্ষা করে প্রয়োজনে প্রশাসনিক অনুমোদনসহ যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট প্রেরণ করা হয়।

আবেদন প্রাপ্তির ৫-৭ দিনের মধ্যে।

অসম্পূর্ন বা ত্রুটিপূর্ণ আবেদন সংশোধনের সুযোগ ও পরামর্শ প্রদান করা হয়।

চ)

৪র্থ শ্রেণী কর্মচারীদের সাধারণ ভবিষ্যৎ তহবিল হতে অগ্রিম গ্রহণ সংক্রান্তঃ

নির্ধারিত ফরমে আবেদন গ্রহণ করা হয়। বিষয় ভিত্তিক ও আর্থিক এখতিয়ারের নিরিখে জেলা প্রশাসক কিংবা বিভাগীয় কমিশনার কর্তৃক সাধারণ ভবিস্য তহবিলের অগ্রিম মঞ্জুর করা হয়।

আবেদন প্রাপ্তির ও দিনের মধ্যে

অসম্পূর্ন বা ত্রুটিপূর্ন আবেদন সংশোধনের সুযোগ ও পরামর্শ প্রদান করা হয়।

ছ)

৪র্থ শ্রেণী কর্মচারীদের বিরুদ্ধে শৃঙ্খলামুলক ব্যবস্থা গ্রহণ সংক্রান্তঃ

দূনীতি কিংবা অসদাচরণের দায়ে কোন কর্মচারী অভিযুক্ত হলে বিধি মোতাবেক তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

অভিযোগ প্রাপ্তির ২-৩ দিনের মধ্যে কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রদন করা হয়। বিভাগীয় মামলার কার্যক্রম ৩-৬ মাসের মধ্যে সর্ম্পর্ন করা হয়।

ন্যায় বিচারের স্বার্থে যাবতীয় বিধি বিধান কঠোরভাবে অনুসারণ করা হয়। কোন পর্যায়ে আইনের ব্যত্যয় ঘটলে সাথে সাথে সংশোধনের পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়।

জ)

৪র্থ শ্রেণী কর্মচারীদের প্রশিক্ষণে মনোনয়ন প্রদান সংক্রান্তঃ

উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট হতে ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচরীদের প্রশিক্ষণের বিষয়ে কোন তথ্য চাহিতে হলে চাহিদা মোতাবেক প্রশিক্ষণ মনোনয়ন প্রদান।

নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কিংবা ০৩ দিনের মধ্যে প্রেরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

মনোনয়ণ প্রদানে কোন সমস্যা দেখা দিলে তা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়।

০৫। হিসাব রক্ষণঃ

ক)

কর্মচরীদের মাসিক বেতন বিল, টিএ বিল, প্রসেস বিল প্রস্ত্ততকরণঃ

যথাসময়ে প্রাপ্যতা অনুসারে বিল প্রস্ত্ততপূর্বক যাচাই-বাছা্ক্রমে উপস্থাপন করা হয়।

বেতন বিল বিচ্যে মাসের ২০-২৪ তারিখের মধ্যে এবং টি,এ বিল ও প্রসেস বিল প্রাপ্তির ৭ দিনের মধ্যে।

সমস্যা থাকলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা/কর্মচারীর সাথে এবং প্রয়োজনে বিভাগীয় হিসাব নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়ে আলাপ করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

খ)

অফিস আনুষঙ্গিক পৌরকর, বিদ্যুৎ ও টেলিফোন বিল, গ্যাস বিল পরিশোধ সংক্রান্তঃ

সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ও অন্যান্য অফিস কর্তৃক দাখিলকৃত বিল যাচাই বাছাইক্রমে (বরাদ্দ সাপেক্ষে) উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট উপস্থাপন করা হয়।

দাবী উপস্থাপনের ১৫ দিনের মধ্যে

সমস্যা থাকলে সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ও প্রয়োজনে বিভাগীয় হিসাব নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়ে আলাপ করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

গ)

৪র্থ শ্রেনী কর্মচারীদের পোষাক সরবরাহ সংক্রান্তঃ

৪র্থ শ্রেণী কর্মচারীদের পোষাক সরবরাহের নিমিত্ত দরপত্র আহবান করে দরপত্র কমিটির মাধ্যমে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করা।

বরাদ্ধ প্রাপ্তির ১-২ মাসের মধ্যে

সমস্যা থাকালে সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ও প্রয়োজনে বিভাগীয় হিসাব নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়ে আলাপ করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

ঘ)

সেনাবাহিনী, পুলিশ, আনসার ইত্যাদিতে লোক নিয়োগ সংক্রান্তঃ

সোনাবাহিনী, পুলিশ, আনসার ইত্যাদিতে লোক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পাওয়ার নির্ধারিত দিনে নিয়োগ কাজে সহায়তা প্রদান করা সহ বহুল প্রচারের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

পত্র প্রাপ্তির সাথে সাথে

-

০৬। টেড লাইসেন্স সংক্রান্তঃ

ক)

ইট ভাটা লাইসেন্স সংক্রান্তঃ

লাইসেন্স প্রদানঃ

আবেদনকরী কর্তৃক নির্ধারিত ফি ৫০০/- টাকা জমা প্রদান করতঃ প্রয়োজনীয় কাগপত্রসহ জেলা প্রশাসক বরাবরে আবেদন করলে ইট পোড়নো (নিয়ন্ত্রণ) আইন ১৯৮৯ এর ৩ ধারা মতে বর্ণিত কমিটি তদন্তক্রমে প্রতিবেদন দাখিল করেন। প্রতিবেদন প্রাপ্তির পর জেলা প্রশাসক মহোদয় ক্ষেত্র মতে লাইসেন্স প্রদান করেন।

লাইসেন্স নবায়নঃ

আবেদনকারী কর্তৃক নির্ধারিত ফি ৫০০/- টাকা জমা করে নবায়নের জন্য জেলা প্রশাসক মহোদয় বরাবর আবেদন করলে জেলা প্রশাসক মহোদয় বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের ২০/১০/২০০২ তারিখের ৯১২নং পরিপত্রের ৪নং অনুচ্ছেদের নির্দেশনা মতে পরিবেশ সংক্রান্ত ছাড়পত্র, চিমন স্থাপনের প্রত্যায়ন, ভ্যাট প্রদান সংক্রান্ত কাগজপত্র প্রদানের পর লাইসেন্স নবায়ন করেন। উক্ত লাইসেন্স এর মেয়াদ ০১ বছর পর্যন্ত বহাল থাকে।

১। নতুন লাইসেন্স প্রদানের ক্ষেত্রে আবেদন প্রাপ্তির ০৭(সাত) দিনের মধ্যে তদন্ত কমিটির নিকট প্রেরণ।

২। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন প্রাপ্তির ০৭(সাত) দিনের মধ্যে লাইসেন্স প্রদান।

৩। দাখিলকৃত প্রয়োজনীয় কাগজাদির সত্যতা যাচাইয়ের পর ৭-১০ দিনের মধ্যে লাইসেন্স নবায়ন করা হয়।

প্রাপ্ত আবেদন ও দাখিলকৃত কাগজপত্র অসম্পূর্ণ কিংবা ভূলত্রুটি থাকলে আবেদনকারীকে সংশোধনের সুযোগ প্রদান করা হয়।

০৭

হোটেল/রেঁস্তোরা বিষয়ক কার্যাদি

হোটেল ও uঁরস্তোরা কর্তৃপক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে নিবন্ধন ও লাইসেন্সপ্রাপ্তির জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্রাদি জমা প্রদান এবঙ সরকার নির্ধারিত লাইসেন্স ফি জমা প্রদান সাপেক্ষে তদন্তপূবক ক্ষেত্রমতে নিবন্ধন ও লাইসেন্স প্রদান করা হয়। প্রদত্ত লাইসেন্স-এর মেয়াদ ও নবায়নের মেয়াদকাল ০১ বৎসর পর্যন্ত বহাল থাকে।

নতুন লাইসেন্স প্রদান ও নবায়নের ক্ষেত্রে আবেদন প্রাপ্তির ০৭ (সাত) দিনের মধ্যে তদন্তকারী কর্মকর্তার নিকট সরেজমিনে তদন্তের জন্য প্রেরণ করা হয়। প্রতিবেদন প্রাপ্তির ০৭(সাত) দিনের মধ্যে বিধি মতে লাইসেন্স প্রদান করা হয়।

প্রাপ্ত আবেদন ও দাখিলকৃত কাগজপত্র অসম্পূর্ন কিংবা ভূলত্রুটি থাকলে আবেদনকারীকে সংশোধনের সুযোগ প্রদান করা হয।

০৮

জাতীয় ও আন্তর্জাতিক দিবস উদযাপন।

প্রস্ত্ততিমূক সভা আহবানের মাধ্যমে কর্মপরিকল্পনা নির্ধারনপূর্বক (প্রয়োজনে কমিটি/ উপ-কমিটি গঠন পূর্বক) জাতীয় ও আন্তর্জাতিক দিবস যথাযোগ্য মর্যাদার পালন করা হয়।

 

 

০৯

অডিট আপত্তি নিস্পত্তি সংক্রান্তঃ

(ক) মাসিক ও ষান্মাসিক প্রতিবেদন।

নির্ধারিত অডিট আপত্তি নিস্পত্তির মাসিক ও ষান্মাসিক প্রতিবেদন।

মাসিক প্রতিবেদন পরবর্তী মাসের ০৫ তারিখের মধ্যে। ষান্মাসিক প্রতিবেদনঃ জানু-জুন ১৫ জুলাই এর মধ্যে জুলাই-ডিসেম্বর পরবর্তী বৎসরের ১৫ জানুয়ারীর মধ্যে।

সমন্বিত প্রতিবেদন প্রস্ত্ততের সময় প্রাপ্ত তথ্যে গরমিল দেখা দিলে সংশ্লিষ্ট’র সাথে যোগাযোগ করে সঠিক তথ্য সংগ্রহের ব্যবস্থা গ্রহণ করা।

১০

(খ) অডিট আপত্তি নিস্পত্তি ব্রডশীট জবাব

কোন ব্রডশীট জবাব পাওয়া গেলে আপত্তির বিষয় ও কারণ এবং সংশ্লিষ্ট জবাব পরীক্ষাত অত্রাফিসের মন্তব্য সংযোজন

জবাব প্রাপ্তির ০৭ (সাত) দিনের মধ্যে।

কোন ভুল পরিলক্ষিত হলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার মাধ্যমে সংশোধন এর ব্যবস্থা নেয়া হয়।


শাখার নামঃসার্বিক , ত্রাণ ও পুনর্বাসন
নাগরিক সেবা

ত্রান ও পূনর্বাসন শাখা


শাখার নামঃআইসিটি , আইসিটি শাখা
নাগরিক সেবা

 আইসিটি শাখা


শাখার নামঃসার্বিক , সাধারণ
নাগরিক সেবা

 সাধারণ শাখা


শাখার নামঃসার্বিক , তথ্য অভিযোগ ও প্রবাসী কল্যান
নাগরিক সেবা

তথ্য অভিযোগ ও প্রবাসী কল্যাণ শাখা


শাখার নামঃসার্বিক , স্থানীয় সরকার
নাগরিক সেবা

ক্রঃ নং

সেবার নাম

সেবা প্রদানের পদ্ধতি

সেবা প্রদানের সময়সীমা

নিদিষ্ট সেবা প্রদানে ব্যর্থ হলে প্রতিকারের বিধান।

 

০১।

ইউপি সচিবদের বেতন ভাতা প্রদান।

মন্ত্রণালয় হতে বরাদ্দ প্রাপ্তির পর ইউ:পি সচিবদের ৭৫% বেতনভাতা এবং উপজেলা হতে অর্থ প্রাপ্তির পর ২৫% বেতন ভাতা পরিশোধের ব্যবস্থা করা হয়।

০১ মাস

-----------------

 

সেবা প্রদানের সময় সীমা

নির্দিষ্ট সেবা প্রদানে ব্যর্থ হলে প্রতিকারের বিধান।

০২।

ইউপি সচিবদের আনুতোষিক প্রদান

আবেদন প্রাপ্তির পর দ্রুততার সাথে নিষ্পত্তির প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ

১০ দিন

আবেদনে কোন ত্রুটি থাকলে তা সংশোধন পূর্বক আবেদন দাখিলার জন্য আবেদনকারীকে বলা হয়।

 

০৩।

ইউপি চেয়ারম্যান/ সদস্যদের সম্মানীভাতা এবং ইউপি গ্রাম পুলিশদের বেতন ভাতা প্রদান।

মন্ত্রণালয় হতে বরাদ্দ প্রাপ্তির পর চেকের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাহীঅফিসারের মাধ্যমে পরিশোধ করা।

১০ দিন

----------------

 

০৪।

ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান/ সদস্য ও সচিবদের বিরুদ্ধে অভিযোগ।

অভিযোগ প্রাপ্তির পর একজন তদন্তকারী কর্মকর্তা নিয়োগ করা হয়। তদন্তকারী কর্মকর্তার প্রতিবেদনের ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

১০ দিন

তদন্তকারী কমৃকর্তা কর্তৃক প্রতিবেদন প্রেরণে দেরী হলে তাগিদ প্রদানের মাধ্যমে তদন্ত প্রতিবেদন সংগ্রহ পূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

 

০৫।

রাস্তাঘাট মেরামত নির্মাণ সংক্রান্ত আবেদন।

আবেদন প্রাপ্তির সাথে সাথে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট বিভাগে প্রেরণ করা হয়।

১০ দিন

----------------

 

০৭।

ইউপি গ্রাম পুলিশদের পোষাক সরবরাহ

মন্ত্রণালয় হতে বরাদ্ধ প্রাপ্তির পর টেন্ডার প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ইউ:পি গ্রাম পুলিশদের অনুকূলে পোষাক সরবরাহ করা হয়।

০৩ মাস

----------------

 

০৮।

অডিট আপত্তি, স্বত্ত্ব মামলা, রীট পিটিশন ইত্যাদি জবাব

বিভিন্ন উপজেলা হতে জবাব প্রাপ্তির পরই দ্রুত সংশ্লিষ্ট বিভাগে প্রেরণ করা হয়।

০১ সপ্তাহ

----------------


শাখার নামঃঅতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট , জেএম
নাগরিক সেবা

0


শাখার নামঃরাজস্ব , জেনারেল সার্টিফিকেট
নাগরিক সেবা

 

ক্রঃ নং

সেবার নাম

সেবা প্রদানের পদ্ধতি

সেবা প্রদানের সময়সীমা

নিদিষ্ট সেবা প্রদানে ব্যর্থ হলে প্রতিকারের বিধান।

০১।

যাবতীয় সরকারি / আধাসরকারী/ স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা/ প্রতিষ্ঠান সমূহের অনাদায়ী অর্থ আদায়।

সরকরী দাবী আদায় আইন ১৯১৩ সনের বিধান মোতাবেক অর্থ আদায় করা হয়।

আদালতের সন্তুষ্টির সাপেক্ষ্যে যত দ্রুত সম্ভব

মামলা দায়েরের সময় আইনগত কোন ত্রুটি পরিলক্ষিত হলে সার্টিফিকেট অফিসর দাবী সংশোধনের সুযোগ দিয়ে থাকেন।


শাখার নামঃরাজস্ব , রেকর্ডরুম
নাগরিক সেবা

ক্র:নং

সেবার সংক্ষিপ্ত বিবরণ

সেবা প্রদানের সময়সীমা

৯.১

জমির মালিক বা তার প্রতিনিধি কর্তৃক সাধারণ ০৮/- টাকা ও জরুরী ১৬/- টাকার কোর্ট ফি দিয়ে আবেদন দাখিল করা হলে খতিয়ানের কপি প্রদান করা হয়।

সাধারণ ০১-০৭ দিন

জরুরী০১-০৩ দিন

 

৯.২

বিভিন্ন মামলার রায়/আদেশের নকল পাওয়ার জন্য জরুরী ১৩/ টাকা ও সাধারণ ৫/- টাকার কোর্ট ফি দিয়ে ও প্রয়োজনীয় ফোলিও জমাদান সাপেক্ষেসহি মোহরকৃত নকল প্রদানকরা হয়।

০১-০৩ দিন

 

৯.৩

নক্সা পাওয়ার জন্য ৪০০/- টাকার কোর্ট ফি দিয়ে আবেদন দাখিল করতে হবে।

০১-০৩ দিন


শাখার নামঃসার্বিক , লাইব্রেরী শাখা
নাগরিক সেবা

0


শাখার নামঃরাজস্ব , ভিপি সেল
নাগরিক সেবা

0